ধর্ম

ধর্ম হচ্ছে বৈশিষ্ট্য। যেমন আগুনের ধর্ম পোড়ানো। পাত্রের ধর্ম কোন কিছু ধারণ করা, ঘড়ির ধর্ম সময় প্রদর্শন করা ইত্যাদি। কিন্তু প্রচলিত অর্থে ধর্ম মানে বিশ্বাস। সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাসকেই বোঝায়।

উইকিপিডিয়ার মতে,

ধর্ম (ইংরেজি: Religion) হল লিপিবদ্ধ সু‌বিন্যস্ত প্রত্যাদেশসমূহ , যেগু‌লো সাধারণত ঈশ্বর-প্রত্যা‌দিষ্ট‌দের মাধ্য‌মে বা‌হিত ও প্রচা‌রিত , ঈশ্বরাজ্ঞা ও ধর্মানুষ্ঠান-‌নির্ভর আচার , আচরণ ও প্রথা সমূ‌হের প‌্র‌তি ‌বিশ্বাস-‌নির্ভর আনুগত্য ; যা সাধারনত ” আধ্যাত্মিক ” ব্যাপারে ” দৃঢ় বিশ্বাস ” এঁর সাথে সম্পর্ক যুক্ত ; এবং বিশেষ পূর্বপুরুষ হতে প্রাপ্ত ঐতিহ্য , জ্ঞান এবং প্রজ্ঞা , রীতি-নী‌তি ও প্রথা কে মানা এবং সে অনুসা‌রে মানবজীবন প‌রিচালানোকে বোঝায় ।

ধর্মীয় চর্চার মধ্যে আচার অনুষ্ঠান, নৈতিক বক্তৃতা, স্রষ্টা অথবা দেবদবীর প্রতি বন্দনা আত্মত্যাগ, ধর্মীয় উৎসব, সমাধি, দীক্ষা, শেষকৃত্য করা, ধ্যান, প্রার্থনা, গান, শিল্পকলা, নাচ, জনগণের সেবা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে যাওয়া অথবা অন্যন্য সংস্কৃতি পালন করাকে ধরা যেতে পারে। ধর্মের ইতিহাস এবং বর্ণনামূলক ধারা থাকে যেগুলো পবিত্র হিসেবে ধারনা করা হয়। এছাড়াও প্রত্যেক ধর্মের ধর্মীয় গ্রন্থ, ধর্মীয় প্রতীক এবং পবিত্র স্থান থাকতে পারে যেগুলোর বেশির ভাগেরই উদ্দেশ্য হচ্ছে জীবনের অর্থ দান করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *